নিরাপদ সড়ক সৃষ্টির জন্য প্রশিক্ষিত ড্রাইভার প্রয়োজন: শাজাহান খান


গুটি কয়েক লোকের কাছে বিআরটিএ জিম্মি হয়ে হয়রানির শিকার হচ্ছে পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা এমনটি মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাবেক নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান এমপি। বুদ্ধিজীবীরা প্রস্তাবিত (সড়ক পরিবহন আইন) আইন পড়ে দেখেননি উল্লেখ করে শাজাহান খান বলেন, সড়ক পরিবহন আইন পরিবর্তন হলে বাংলাদেশ হেরে যাবেন বলে বুদ্ধিজীবীরা যে বক্তব্য দিয়ে আসছেন, তা সঠিক নয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, পুলিশের প্রধানসহ সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি আরও বলেন, ‘সড়কে এখনো চাঁদাবাজি বন্ধ হয়নি। এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নিন।’

শনিবার (২৩ জানুয়ারী) দুপুরে নগরীর কদমতলীর আবুল খায়ের ভবনে অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম বিভাগীয় পণ্য পরিবহন ফেডারেশনের দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, দেশের অন্যান্য অঞ্চলে ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণ হলেও চট্টগ্রামে এখনো কোনো টার্মিনাল হয়নি। এটি খুবই দুঃখজনক। নিরাপদ সড়ক সৃষ্টির জন্য প্রশিক্ষিত ড্রাইবার প্রয়োজন। অথচ কোনো সরকারই আজ পর্যন্ত এ খাতে কোনো টাকা খরচ করেননি। অনেক সেক্টরে ভর্তুকি দিয়ে আসলেও এ খাতে সরকারের কোনো ভর্তুকি নেই।

এর আগে প্রধান বক্তা হিসেবে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ পরিবহন মালিক ফেডারেশনের সভাপতি মশিউর রহমান রাঙ্গা এমপি। তিনি নেতাকর্মী সকলকে একত্রিত হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান। এছাড়াও অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম বিভাগ পরিবহন মালিক সমিতি ও ফেডারেশনের অসংখ্য নেতাকর্মী। অনুষ্ঠানের শেষের দিকে চট্টগ্রাম বিভাগীয় পণ্য পরিবহন ফেডারেশনের ২০২০-২০২২ সালের ৫ পদের নতুন একটি কমিটি ঘোষণা করা হয়। এতে আবদুল মান্নানকে সভাপতি, মো. আবু বক্করকে কার্যকরি সভাপতি, দীন মোহাম্মদকে সিনিয়র সহ-সভাপতি, মোহাম্মদ নুরুল আবছারকে মহাসবি ও মো. হুমায়ূন কবির সোহেলকে সিনিয়র অতিরিক্ত মহাসচিব করা হয়। ঘোষিত এ কমিটি আগামী ১৫ দিনের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করবেন বলে জানা গেছে।

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফোকাস চট্টগ্রাম ডটকম

0Shares