মেসেঞ্জারে নববর্ষের শুভেচ্ছা মেসেজ থেকে সাবধান: আড়ালে হ্যাকার


কেন যেন একটা চক্র ওৎ পেতে আছে নিরীহ মানুষের একান্ত ব্যক্তিগত জীবনের প্রতিটি পদক্ষেপেই। কেমন জঘন্য একটা চিন্তাধারা এটা। সবারই উচিৎ অন্যের ব্যক্তিগত জীবনকে সন্মান করা।

সামনে আসছে ২০২০ সাল। একে অপরকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানাচ্ছে । এটাই স্বাভাবিক। একটু আগে এক পরিচিত আমাকে ফেসবুক মেসেঞ্জারে নববর্ষের শুভেছা জানালো একটা ছবিসহ লিংক দিয়ে। ভালোই লেগেছিল এই অগ্রিম শুভেছা পেয়ে। কিন্তু, কেন যেন ওই লিংকটা আমার কাছে সন্দেহজনক মনে হয়েছিল।

চলুন দেখি কি ছিল ওটা। ওই লিংকে যদি আমি ক্লিক করি তবে সেটা প্রথমে আমার এন্ড্রয়েড/আইফোনে একটা সফটওয়্যার ইন্সটল করবে ব্যাকগ্রাউন্ডে। আর ওই সফটওয়্যারটা তখন ওই ফোনে ব্যাকগ্রাউন্ডে আরও কিছু সফটওয়্যার ইন্সটল করবে। এগুলোর একটা হল ভাইরাস আর অন্য অ্যাপগুলো ব্যাকডোর হিসেবে কাজ করবে। এই ভাইরাস আপনার ফোনকে একসময় হঠাৎ নষ্ট করে দিতে পারে। ওই ব্যাকডোর হ্যাকারকে আপনার ফোনে দূর থেকে অ্যাক্সেস দেবে। তখন আপনার পুরো ফোনের কন্ট্রোল ওই হ্যাকার নিয়ে নেবে। তবে আপনি দেখবেন সবকিছুই আসলে স্বাভাবিক মনে হচ্ছে। কিন্তু আপনি বুজতেও পারছেন না যে কেও আপনার ফোনের সমস্ত তথ্য, পাসওয়ার্ড ইত্যাদি চুরি করছে। আর যাদের ফোনে বিকাশ বা ওই জাতীয় অ্যাপ আছে এটা তাদের জন্য একটা দুঃসংবাদ হয়ে দাঁড়াতে পারে। কারণ আপনার সবকিছুই জেনে যাচ্ছে দূরের অজানা কেও। আর আপনার ফোনতো অন্য কারো নিয়ন্ত্রণে। হ্যাকার চাইলে আপনার ফোন ব্যবহার করেই আপনার বিকাশের টাকা অন্য কোথাও পাঠাতে পারে।

যদি ভুলে ক্লিক করে ফেলেছেন ওই শুভেচ্ছা লিংকে তবে কি করনীয়?

সাথে সাথে ফোনটার পাওয়ার অফ করুন। এবার ওই ফোনে যদি মেমোরি কার্ড থাকে তবে ওটা বের করে নিন। এই মেমোরি কার্ডটা কোথাও ব্যবহার করবেন না। এবার ওই ফোনটি কম্পিউটারে ফ্লাশ/রিসেট করুন। অনেকে বিভিন্ন কী প্রেস করে হার্ড রিসেট করেন, কিন্তু এই ক্ষেত্রে এটা যথেষ্ট নয়। এটা অবশ্যই কোন ক্লিন বা ভাইরাসমুক্ত কম্পিউটারে ফ্ল্যাশ করবেন। এবার যদি মেমোরি কার্ডটি ব্যবহার করতে চান, তবে সেটা full format করবেন (quick format) করা যাবে না এই ক্ষেত্রে। সম্ভব হলে ওই মেমোরি কার্ডের পার্টিশন ভেঙ্গে ওটাকে fat32 এ ফরম্যাট করুন। এখন এই কার্ডটি নিরাপদে ব্যবহার করতে পারেন। তবে ওই ফোনের মেমোরি কার্ড বা ফোন থেকে কোন কিছু রি-কভার করার চেষ্টা করবেন না।

একটা জিনিষ অবশ্যই খেয়াল রাখবেন, এটা হল, ফোনটি কম্পিউটারে ফ্লাশ/রিসেট না করা পর্যন্ত কোনভাবেই পাওয়ার অন করবেন না এবং এই সময় ফোনে চার্জও দেওয়া যাবে না। যদি আপনার ফোনের ব্যাটারি খোলা সম্ভব হয় তবে ব্যাটারিটা খুলে রাখুন।

এবার অন্য কোন ভালো ফোন থেকে ফেসবুকসহ অন্যান্য লগ-ইন যেগুলো (উদাহরণঃ gmail বা yahoo বা অন্য কিছু) করা ছিল সেগুলোর পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করুন।

আজকাল হ্যাকিং জিনিষটা কেমন যেন বেড়ে গেছে সারাবিশ্বে। কখনো ফেসবুক মেসেঞ্জারে কোন অজানা লিংকে ক্লিক করবেন না, এমনকি ওটা কোন প্রিয়জনও যদি পাঠিয়ে থাকে। কারণ হয়তো ওই প্রিয়জনও এটা পেয়েছিল তার মেসেঞ্জারে এবং ও জানতো না ওটা আসলে কি ছিল।

তাহলে চলুন সবাই অন্যের ব্যক্তিগত জীবনকে সম্মান দিতে শিখি।

লোকনাথ দাশ, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার, অতিথি লেখক, ফোকাস চট্টগ্রাম২৪ ডটকম

0Shares