হেফাজতে ইসলামের সাবেক আমির শফীকে হত্যা মামলার তদন্তকাজ শুরু


হেফাজতে ইসলামের সাবেক আমির আল্লামা আহমদ শফীকে হত্যার অভিযোগে আদালতে দায়ের করা মামলার তদন্তকাজ শুরু করেছে পিবিআই।

মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারী) সকালে হাটহাজারী মাদ্রাসায় পিবিআই টিম সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলেন।

এদিকে আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে হত্যার অভিযোগে মামলার এজাহারে যেসব বিষয়ে উল্লেখ করা হয়েছে সব পুঙ্খানুপুঙ্খ যাচাই বাছাই করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই)বিশেষ পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন। তিনি বলেন, আলামত সংগ্রহের পাশাপাশি তদন্তের স্বার্থে যা কিছু করা প্রয়োজনে সব করা হবে। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় হাটহাজারী মাদ্রাসা পরিদর্শনে গেলে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় পিবিআই জেলার পুলিশ সুপার নাজমুল হাসানও উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন বলেন, তদন্তের অংশ হিসেবে পিবিআই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। তদন্তের বিষয়ে আমরা বেশ কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলেছি। তদন্তের স্বার্থে বেশি কিছু বলা যাবে না। তবে আদালতের বেঁধে দেওয়া সময়ে মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার লক্ষ্যে আমরা কাজ করছি।

গত ১৭ ডিসেম্বর চট্টগ্রাম সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শিবলু কুমার দে এর আদালতে মামলাটি দায়ের করেন আল্লামা শফীর শ্যালক মোহাম্মদ মাঈনুদ্দিন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের দায়িত্ব দিয়েছেন। এক মাসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

মামুনুল হক ছাড়াও মামলায় অন্য অভিযুক্তরা হলেন-নাছির উদ্দিন মুনির, আজিজুল হক ইসলামাবাদী, মীর ইদ্রিস, হাবিব উল্লাহ, আহসান উল্লাহ, জাকারিয়া নোমান ফয়েজী, নুরুজ্জামান নোমানী, আব্দুল মতিন, মো. শহীদুল্লাহ, মো. রিজওয়ান আরমান, মো. নজরুল ইসলাম, হাসানুজ্জামান, এনামুল হাসান ফারুকী, মীর সাজেদ, জাফর আহমদ, মীর জিয়াউদ্দিন, আহমদ, মাহমুদ, আসাদউল্লাহ, জোবায়ের মাহমুদ, এইচ এম জুনায়েদ, আনোয়ার শাহ, আহমদ কামাল, নাছির উদ্দিন, কামরুল ইসলাম কাসেমী, মোহাম্মদ হাসান, ওবায়দুল্লাহ ওবাইদ, জুবায়ের, মোহাম্মদ, আমিনুল হক, রফিক সোহেল, মোবিনুল হক, নাঈম, হাফেজ সায়েম উল্লাহ ও হাসান জামিল। এছাড়া মামলায় অজ্ঞাতনামা আরও ৮০-৯০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী সাংবাদিকদের বলেন, আমি কিছু বলতে পারব না। তদন্ত দল যা কিছু জিজ্ঞেস করেছেন আমরা তাদের বলেছি৷ আমাদের যা বক্তব্য ছিল আমরা সংবাদ সম্মেলনে বলে দিয়েছি।

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফোকাস চট্টগ্রাম ডটকম

0Shares