হ্যাকার থেকে নিরাপদ থাকুক আপনার ফেসবুক একাউন্ট


সময়টা এখন এমন যে, সকালে ঘুম থেকে উঠে সবার আগে ফেসবুক দেখাটা একটা অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। এইতো কিছুদিন আগে এক পরিচিতজন আমাকে ফেসবুকে মেসেজ পাঠাল যে তার খুব টাকার দরকার এবং আমি যেন তাকে দ্রুত কিছু টাকা বিকাশে পাঠাই। একটু আশ্চর্য হলাম দুটো কারণে, প্রথমত, তিনি এমন একজন যার টাকা ধার করার প্রয়োজনই নেই। দ্বিতীয়ত, ও হল আমার বাল্যবন্ধু, আমরা সবসময় তুই করেই বলি। কিন্তু, ওই মেসেজে ও আমাকে আপনি বলল। বুঝতে বাকি রইল না যে, কেউ তার ফেসবুক হ্যাক করেছে। আমি ওকে তাড়াতাড়ি ফোনে বললাম এই মেসেজর ব্যাপারে। ও তো জানতোই না ব্যাপারটা। তাকে খুব হতাশ শোনাচ্ছিল। হতাশ হওয়ার ব্যাপারও এটা। প্রায় প্রতিদিন কোথাও না কোথাও ঘটছে একি ধরনের বা কিছুটা ভিন্ন ধরনের ঘটনাগুলো।

চলুন এবার জানি কিভাবে আমরা অতি সহজেই এই হ্যাকিং থেকে রক্ষা পেতে পারি। আশা করি, নীচের লেখাগুলো আমরা একটু মনোযোগ সহকারে পড়লে আর তা বাস্তবে প্রয়োগ করলে এরকম বিপদ খেকে রক্ষা পেতে পারি।

১) উইন্ডোজ ইন্সটল করা আছে এমন কোন ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ থেকে ফেসবুকে লগইন করা যাবে না যদি ওই উইন্ডোজটি অরিজিনাল না হয়। দেখা যাচ্ছে বাংলাদেশে প্রায় ৯৯% কম্পিউটারেই পাইরেটেড উইন্ডোজ ইন্সটল করা। এটা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ, মূলত হ্যাকাররাই এই ক্র্যাকড কপিগুলো রিলিজ করে। আর এই হ্যাকাররাই এখানে যোগ করে বিভিন্ন খারাপ কোডগুলো যেগুলো তারা হ্যাকিং এর জন্য ব্যাকডোর হিসেবে ব্যাবহার করে। আরও বিপদের কথা এইযে, এসব পাইরেটেড উইন্ডোজে অ্যান্টিভাইরাসও ঠিকভাবে কাজ করে না।

যদি অরিজিনাল উইন্ডোজ থাকে তবে ওটাতে একটা ভালো অ্যান্টিভাইরাস সবসময় অ্যাক্টিভ রাখবেন। সবসময় অ্যান্টিভাইরাসটা আপডেটেড রাখার চেষ্টা করবেন। আর ওটাতে কোন আজেবাজে সফটওয়্যার বা গেম ইন্সটল করবেন না। এটা মেনে চললে আপনি ওই কম্পিউটারেই ফেসবুক ব্যবহার করতে পারেন।

২) কোন সাইবার ক্যাফে থেকে ফেসবুকে লগইন করা যাবে না।

৩) যদি আপনি স্মার্টফোন বা কোন মোবাইল ফোন থেকে ফেসবুকে লগইন করতে চান তবে আগে দেখবেন ওখানে কোন আজেবাজে অ্যাপ বা গেম ইন্সটল করা আছে কিনা।

৪) স্মার্টফোন বা কোন মোবাইল ফোন, যেটা থেকে আপনি ফেসবুক ব্যবহার করেন, ওই ফোনে অজানা কোন আপস বা গেম ইন্সটল করবেন না।

৫) পাসওয়ার্ড একটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এখানে। মূলত সারাবিশ্বে ৮০% লোকই দুর্বল পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে, এটাই হ্যাকড হওয়ার অন্যতম কারণ। কখনো নাম বা ফোন নম্বর বা উভয়ের সমষ্টি পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করবেন না। তাহলে দেখি একটা শক্তিশালী পাসওয়ার্ড কি ধরনের হওয়া উচিৎ।
উদাহরণঃ  #$^%$hgdtry%66$#@()*&^rt45#@hg%^&$
এই জাতীয় পাসওয়ার্ডগুলো হ্যাকারদের পক্ষে ভাঙ্গা খুব কঠিন হয়।

৬) কখনো ফেসবুক পেইজে বা মেসেঞ্জারে অজানা কোন লিংক দেওয়া কিছু থাকলে ওটাতে ক্লিক করবেন না।

৭) 2 step verification অ্যাক্টিভ রাখবেন সবসময়।

৮) আপনার পেইজে অন্য কারো শেয়ার বা লিখার অপশন ডিসেবল করে রাখবেন, যাতে অন্য কেও আপনার পেইজে কিছু লিখতে শেয়ার বা পোস্ট করতে না পারে।

সাধারণ কিছু জিনিষ শিখলাম আজ আমরা এখানে কিন্তু এই সাধারণ জিনিষগুলোই আপনাকে ৯৯% সুরক্ষা দেবে। আশা করি এটা আবার একবার মনোযোগ দিয়ে পড়বেন এবং তা বাস্তবে প্রয়োগও  করবেন।

লোকনাথ দাশ, অতিথি লেখক, ফোকাস চট্টগ্রাম২৪ ডটকম

0Shares